আজ ৯ই মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২৩শে জানুয়ারি, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

আটকা পড়ার ৭ ঘণ্টা পর ঘাটে ফিরে সেন্টমার্টিনগামী কর্ণফুলি এক্সপ্রেস

অতিরিক্ত যাত্রী নেওয়ায় ভারসাম্য রাখতে না পেরে আটকা পড়ার সাড়ে সাত ঘণ্টা পর ঘাটে ফিরতে সক্ষম হয় সেন্টমার্টিন থেকে কক্সবাজারগামী জাহাজ কর্ণফুলী এক্সপ্রেস।
বুধবার রাত ৯টা থেকে ভোর সাড়ে তিনটা পর্যন্ত বঙ্গোপসাগরের বাঁকখালীর মোহনায় আটকে ছিলো জাহাজটি। পরে ভোর সাড়ে চারটার দিকে জাহাজটি কক্সবাজার বিআইডাব্লিও ঘাটে পৌঁছায়।
দীর্ঘ সাড়ে সাত ঘন্টা আটকা পড়া অবস্থায় পর্যটকেরা ক্ষুধা, ভয় ও শীতে কাহিল হয়ে যায়।
বুধবার সেন্টমার্টিন থেকে আসার পথে জাহাজটি সাগরের বাঁকখালী মোহনায় একটি চরে আটকে যায়। এরআগে একই জাহাজ সকালেও হাজার খানেক পর্যটক নিয়ে প্রায় দু’ঘণ্টা আটকে ছিল।

জানা গেছে, কর্ণফুলী এক্সপ্রেস জাহজটি পর্যটক নিয়ে সকাল ৭টায় কক্সবাজার বিআইডাব্লিও ঘাট থেকে সেন্টমার্টিনের উদ্দেশ্যে যাত্রা করে। কিন্ত বাঁকখালী নদীর মোহনার শেষ প্রান্তে গিয়ে চরে আটকে যায়। পরে চট্টগ্রাম থেকে আসা একই কোম্পানির বিশাল জাহাজ বে ওয়ান। বে ওয়ান যাত্রীদের নিয়ে সেন্টমার্টিন পৌঁছে দুপুরে। আবার বিকালে ফিরতি যাত্রী নিয়ে আসা বে ওয়ান থেকে রাত ৯টার দিকে নাজিরারটেক সংলগ্ন বাঁকখালীর মোহনায় এসে কর্ণফুলি জাহাজে উঠানো হয় কক্সবাজারগামী যাত্রীদের৷ এতে সকালের মত কর্ণফুলী এক্সপ্রেসে উঠা যাত্রীরা পড়েন বিপাকে৷ আবারও চরে আটকা পড়েন তারা৷
এ ব্যাপারে কর্ণফুলী এক্সপ্রেসের কক্সবাজার অফিসের ইনচার্জ আবু তৈয়ব বলেন, ভাটা থাকায় চরে আটকা পড়েছে জাহাজটি। পরে জোয়ার হলে মুক্ত হয়। যাত্রীদের ঘাটে পৌঁছে দেয়া হয়েছে।

যাত্রীরা দাবি করছেন, ধারণ ক্ষমতার বেশি যাত্রী বহন করায় চরে আটকা পড়ে জাহাজটি। অন্তত এক হাজার যাত্রী ছিলো সেখানে৷
এছাড়াও জাহাজ পরিচালনাকারী কর্তৃপক্ষের অধক্ষতার অভিযোগ করেছেন অনেক যাত্রী।

Leave a Reply

     এই বিভাগের আরও খবর