আজ ৯ই মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২৩শে জানুয়ারি, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

ওটিটিতে স্বাধীনতা আছে: দীপা

অনলাইন বার্তা ডেস্ক: ওটিটি প্ল্যাটফর্ম জিফাইভ-এ মুক্তি পাচ্ছে ড্রামা সিরিজ ‘আমাদের বাড়ি’। ১২০ পর্বের এ সিরিজটি নির্মাণ হয়েছে পারিবারিক কাহিনী নিয়ে। শনিবার (২৭ নভেম্বর) মুক্তি পাচ্ছে সিরিজটির প্রথম ২০ পর্ব।

এ সিরিজে মুখ্য চরিত্রে অভিনয় করেছেন দীপা খন্দকার। আলাপকালে তিনি জানিয়েছেন ‘আমাদের বাড়ি’ নিয়ে বিভিন্ন তথ্য। আলাপের চুম্বক অংশটুকু পাঠকদের জন্য তুলে ধরা হলো-

আপনার চরিত্রটি নিয়ে বলুন-
আমার চরিত্রটি বেশ মজার। এখানে আমি একজন মনোরোগ বিশেষজ্ঞ। এক সময় আমার মনে হয়, আমি বাইরে কেন প্র্যাকটিস করব, আমার বাসাতেই তো নানান ধরনের রোগী। সেই ভাবনা থেকেই বাড়ির সদস্যদের মনোরোগের নানা বিষয়ে সেশন নিতে থাকি। এভাবেই হাসি, আনন্দের নানা ঘটনাকে নিয়ে এগিয়ে চলে ড্রামা সিরিজ ‘আমাদের বাড়ি’।

শুটিংয়ের অভিজ্ঞতা কেমন ছিল?
উত্তরার একটি বাড়িকে প্রয়োজন অনুযায়ী সাজিয়ে নিয়ে শুটিং করা হয়েছে। আসলে পুরো নাটকজুড়েই নানান মজার ঘটনা। একটা অংশে ছিল রুটি বানানোর দৃশ্য। আমি আমার পরিবারের ছোটদের দিয়েছি রুটি বানাতে, মূলত এটা একটা প্রতিযোগিতা। যার রুটি বানানো সবচেয়ে সুন্দর হবে তাকে একটা পুরস্কার দেওয়া হবে। চেষ্টা করলেও কারো রুটিই ঠিকভাবে হচ্ছিল না। যার রুটি ভালো হলো তার পুরস্কার হলো রুটি বানানোর বেলন। মানে সে রোজ রুটি বানাবে, শাস্তির মতো মনে হলেও সেটাই ছিল পুরস্কার।

আপনারা তো করোনাকালে শুটিং করেছিলেন-
হ্যাঁ। আমরা সতর্কতা মেনেই কাজটি করেছি। নিজেকে সাবধানে রাখতে হয়েছিল। আমরা তো খুব বেশি মাস্ক ব্যবহার করতে পারিনি। তাই ইউনিটের বাকিরা যাতে মাস্ক ব্যবহার করে, সেটুকু নিশ্চিত করা হয়েছিল। সবমিলিয়ে অন্যরকম একটি অভিজ্ঞতা হয়েছে কাজটি করতে গিয়ে।

টেলিভিশন আর ওটিটির কাজের মধ্যে ভিন্নতা আছে?
টেলিভিশনে এখনো সব ধরনের গল্পের কাজ দেখানো যায় না। কিন্তু ওটিটিতে সেই স্বাধীনতা আছে। এ ছাড়া টেলিভিশনে কাজের ক্ষেত্রে বাজেট বেঁধে দেওয়া হয়, যাতে অনেক সময় কাজের মান খারাপ হয়ে যায়। কিন্তু এক্ষেত্রে এখন পর্যন্ত মান ধরে রেখেছে। যদি দীর্ঘদিন মান ধরে রাখতে পারে, তাহলে ওটিটি বেশ ভালো প্ল্যাটফর্ম।

‘আমাদের বাড়ি’ ১৯০টি দেশের মানুষ দেখবে ওটিটি’র মাধ্যমে-
এটাতো দারুণ বিষয়। দেশের বাইরে যারা থাকেন তারা অনেকেই জানান, সব চ্যানেল উনারা দেখতে পারেন না, সব কাজ ইউটিউবে পাওয়া যায় না। ওটিটি এসব সমস্যার সমাধান নিয়ে এসেছে। নিঃসন্দেহে ভালো লাগছে এতোগুলো দেশের বাংলাভাষীরা এবার আমাদের অভিনয় দেখতে পারবেন। 

আপনার প্রত্যাশা কেমন?
আমার মনে হয়, দর্শক পারিবারিক গল্প দেখতে চায়। আমি নিজে যখন দর্শক হিসেবে নাটক দেখি, দুজন বা তিনজনকে নিয়ে সাজানো, হোক তা প্রেমের বা অন্য কিছুর। আমার খুব একটা ভালো লাগে না। হাস্যরস নিয়ে সাজানো, একেক জনের একেক রকম মজার চরিত্র নিয়ে সাজানো পারিবারিক এই সিরিজটি আশা করা যায় দর্শকদের ভালো লাগবে।

Leave a Reply

     এই বিভাগের আরও খবর