আজ ১৪ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২৯শে নভেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

পরীমণির কণ্ঠে রণজয়ের গান! বাংলাদেশে পৌঁছে গেল শিলাদিত্যের ‘হৃৎপিণ্ড’

আবারও প্রমাণিত, গান কাঁটাতারের শাসন মানে না। প্রমাণ করলেন পরীমণি। সোমবার রাতে ‘প্রীতিলতা’-র কণ্ঠে শিলাদিত্য মৌলিকের ‘হৃৎপিণ্ড’ ছবির গান। যার সুরকার রণজয় ভট্টাচার্য। গানের ভিডিয়ো ফেসবুকে পোস্ট করতেই অনুরাগীদের চর্চা শুরু। পরীর কণ্ঠের প্রশংসার পাশাপাশি আলোচিত হচ্ছে রণজয়ের নামও। পরীর অন্ধকার ঘরে টুনির রোশনাই। তিনি আবছা গলায় গাইছেন, ‘কেন রোদের মতো হাসলে না!’ বাংলাদেশের প্রথম সারির নায়িকার জানলার বাইরেও নিঝুম অন্ধকার। দূরে বিন্দু বিন্দু জ্বলছে বহুতলের আলো। পরীমণি এক মনে তাঁর ভালবাসা খুঁজছেন গানে গানে, ‘আমায় ভালবাসলে না, আমার কাছে দিন ফুরালেও আসলে না’…! নায়িকার দৌলতে রণজয় এক লহমায় আন্তর্জাতিক!

সুরকার কি শুনেছেন পরীমণির গান? আনন্দবাজার অনলাইনকে উত্তর দিতে গিয়ে উচ্ছ্বাস চাপতে পারেননি তিনিও। জানালেন, সোমবার রাত থেকে তাঁকে সবাই জানিয়েছেন। কেউ কেউ পরীমণির গাওয়া গানের সূত্রও (লিঙ্ক) পাঠিয়েছেন। শুনে কান-মন জুড়িয়েছে তাঁর? দরাজ গলায় শংসাপত্র দিলেন ফোনেই, ‘‘‘মনকেমনের জন্মদিন’ গানটিকে বাংলার সবাই ভালবেসেছেন। সেটা যে বাংলাদেশে পৌঁছবে এবং পরীমণি গাইবেন, ভাবতেই পারিনি! খুব লোভ হচ্ছে বাংলাদেশ আর পরীমণির সঙ্গে কাজ করার।’’ সুরকারের আরও দাবি, শিলাদিত্যের ‘সোয়েটার’ ছবির ‘প্রেমে পড়া বারণ’ বাংলাদেশে জনপ্রিয়। এখন মনে হচ্ছে, এই গানটি আগের গানকেও ছাপিয়ে গেল। সঙ্গে আক্ষেপ, নির্দিষ্ট সময়ে ছবিটি মুক্তি পেলে আরও বেশি ছড়িয়ে পড়ত ‘মনকেমনের জন্মদিন’।

এ দিকে পরীমণির পোস্ট করা ছবি বলছে, তাঁর বোধ হয় মনখারাপ! কলকাতার জন্য। কারণ, তাঁর ফেসবুক ছেয়ে গিয়েছে কলকাতার ছবিতে। বিভিন্ন সময়ে আসা মুহূর্ত দিয়েই যেন দিনযাপন তাঁর। গিটার হাতে ছবিতে নায়িকা স্পষ্ট জানিয়েছেন, দুঃখ ভুলতে গানেই আশ্রয় নেন তিনি। সেই জন্যই কি রণজয়ের গান বাছলেন? পরীমণি দুর্লভ। তাঁর হয়ে উত্তর দিয়েছেন রণজয়, ‘‘এই গানটি ভীষণ নরম, পেলব। এর সুর অনুভূতিপ্রবণ মানুষের মন ছুঁয়ে গিয়েছে। তাই হয়তো ‘মনকেমনের জন্মদিন’ পরীমণিও ভালবেসেছেন।’’

Leave a Reply

     এই বিভাগের আরও খবর